আবারও অধিনায়ক হচ্ছেন বাবর  

মোঃ আশিকুর রহমান
ফেব্রুয়ারি ৮, ২০২৪

Share Now

নতুন চেয়ারম্যান হয়ে এসেছেন মহসিন নকভি পাকিস্তান ক্রিকেটে। পাঞ্জাবের অন্তর্বর্তীকালীন এই মুখ্যমন্ত্রী আগামী তিন বছরের জন্য সামাল দেবেন দেশের ক্রিকেট। 

তবে তিনি দলে আসতেই শুরু হয়েছে নতুন জল্পনা-কল্পনা। গুঞ্জন রয়েছে, নাকভির অধীনে আরও একবার অধিনায়কত্বের দায়িত্ব বুঝে পাবেন বাবর আজম। যদিও মাত্র তিন মাস আগেই এই দায়িত্ব থেকে সরে এসেছিলেন বাবর। 

বিশ্বকাপের পর নানামুখী সমালোচনার চাপে নিজ থেকেই এমন সিদ্ধান্ত নিয়েছিলেন বাবর আজম। এমন এক সিদ্ধান্তের পেছনে অবশ্য পিসিবির সেই সময়ের প্রধান জাকা আশরাফের প্রভাবও ছিল স্পষ্ট। বিশ্বকাপ ব্যর্থতার পর টি-টোয়েন্টিতে পাকিস্তানের অধিনায়ক হয়েছেন শাহিন আফ্রিদি। আর টেস্টে অধিনায়কের দায়িত্বে ছিলেন শান মাসুদ। তবে ওয়ানডেতে এখন পর্যন্ত নেই কোনো অধিনায়ক। 

যদিও গুঞ্জন বলছে, অধিনায়ক হলে বাবর মূলত তিন ফরম্যাটেই অধিনায়ক হবেন। পাকিস্তান অবজারভার, সামা টিভিসহ বিভিন্ন গণমাধ্যম পিসিবির অভ্যন্তরীণ সূত্রের কথা উল্লেখ করে জানিয়েছে, পিসিবির নবনির্বাচিত চেয়ারম্যান মহসিন নাকভি বাবরকে আবারও নেতৃত্বে ফেরানোর কথা ভাবছেন। 

২৯ বছর বয়সি বাবর পাকিস্তানের অধিনায়ক হয়েছিলেন ২০১৯ সালে। সেবার সীমিত ওভারের অধিনায়ক ছিলেন তিনি। পরের বছর দায়িত্ব পান টেস্টেও। জনপ্রিয়তার দিক থেকে ওপরে উঠলেও বাবর নেতৃত্বের দিক থেকে বড় কোনো সাফল্য পাননি। ২০২২ টি–টোয়েন্টি বিশ্বকাপে ফাইনাল খেলা এবং গত বছর ওয়ানডে র্যাংকিংয়ে এক নম্বরে ওঠাই পাকিস্তানের সর্বোচ্চ অর্জন। 

যদিও বিশ্বকাপে বাদ পড়া, এশিয়া কাপের সুপার ফোর থেকে বাদ পড়া কিংবা দলে বন্ধুদের প্রাধান্য দেওয়াসহ বিভিন্ন অভিযোগ বারবারই সঙ্গী হয়েছে তার। অবশ্য বাবরকে বাদ দিয়েও পাকিস্তান ক্রিকেটে রাতারাতি কোনো সাফল্য আসেনি। বাবর অধিনায়কত্ব ছাড়ার পর দুটি সিরিজ খেলেছে পাকিস্তান। 

এর মধ্যে অস্ট্রেলিয়ায় টেস্ট সিরিজ হেরেছে ৩–০ ব্যবধানে, আর নিউজিল্যান্ডে টি–টোয়েন্টি সিরিজে হার ৪–১ ব্যবধানে।

তবে আশার কথা, বিশ্বকাপ এবং এর পরবর্তী সময়ে ফর্মহীনতায় ভোগা বাবর এরই মাঝে রানে ফিরতে শুরু করেছেন। নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে সিরিজে রান এসেছিল তার ব্যাটে। এর পর চলতি বিপিএলেও নিজের শেষ ম্যাচের সময় ছিলেন আসরের সর্বোচ্চ রান সংগ্রাহক।